বলিউডবিনোদন

রেস্টুরেন্টের ওয়েটার এখন ১২০ কোটি টাকার নায়ক

রাজিব হরি ওম ভাটিয়া আসল নাম। তবে সবাই তাকে চেনে অক্ষয় কুমার হিসেবে। ১৯৬৭ সালের ৯ সেপ্টেম্বর পাঞ্জাবের অমৃতসরে জন্ম নেন তিনি। তায়কোয়ান্দোতে ব্ল্যাক বেল্ট পাওয়ার পর তিনি মার্শাল আর্ট শেখার জন্য উড়াল দেন ব্যাংকক।

এরপর জীবিকার তাগিদে দেশে-বিদেশে রেস্টুরেন্টের ওয়েটার হিসেবে কাজ করেছেন। বাংলাদেশের মতিঝিলে অবস্থিত একটি হোটেলেও ওয়েটার হিসেবে দীর্ঘদিন কাজ করেছেন তিনি। সেই অক্ষয় কুমার আজ বলিউডের সুপারস্টার নায়ক।

এই মুহূর্তে বলিউডের সবচেয়ে সফল অভিনেতা হিসেবে উচ্চারিত হয় তার নাম। কোনো সিনেমায় অক্ষয় কুমার মানেই সেই ছবি নিশ্চিত লগ্নির টাকা ঘরে তুলবে। বিশেষ করে গেল দুই বছর ধরে তার অনেক ছবিই ২০০-২৫০ কোটি আয়ের ক্লাবে নাম লিখিয়েছে। তাই প্রযোজক বা পরিচালকদের ভরসার পাত্রে পরিণত হয়েছেন তিনি।

যে কোনো মেজাজের চরিত্রের জন্য অক্ষয় মানিয়ে যান। হোক সেটা দেশপ্রেমিক যোদ্ধার কিংবা বোকা সোকা কোনো মধ্য বয়স্ক মানুষের চরিত্র। নিজের এই চাহিদা দেখে দামটা তাই বাড়িয়ে নিতে ভুল করলেন না। শোনা যাচ্ছে এখন থেকে প্রতি সিনেমায় তার পারিশ্রমিক আগের তুলনায় অনেক বেশি বাড়তে চলেছে। এখন থেকে সব ছবিতে তিনি ১২০ কোটি পারিশ্রমিক করে নেবেন।

‘বলিউড হাঙ্গামা’-তে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, আনন্দ এল রাই-এর পরবর্তী ছবিতে অভিনয়ের জন্য ১২০ কোটি টাকা পারিশ্রমিক পেতে চলেছেন অক্ষয়। এই ছবি দিয়েই নতুন পারিশ্রমিকের যাত্রা শুরু হবে এ নায়কের।

বলিউডে সাধারণত তারকাদের পারিশ্রমিকের ডিলগুলি করে থাকে তাদের নিজস্ব টিম। সেই টিমের মধ্যে থাকেন তার পার্সোনাল সেক্রেটারি, ম্যানেজার, আইনজীবী এবং পাবলিসিস্টরা। ওই প্রতিবেদনে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, অক্ষয় কুমারের টিমের মতে অভিনেতার সাম্প্রতিক সাফল্যের পরে আগামী দিনে এত টাকাই প্রাপ্য তার।

প্রতিবেদনে আরও প্রকাশিত, এই নতুন ছবিতে অক্ষয়ের পারিশ্রমিক প্রসঙ্গে ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, ‘অক্ষয় কুমার মোটা টাকার পারিশ্রমিক দাবি করে থাকেন এটা বলিউডে সবাই জানে। আর আজকের দিনে দাঁড়িয়ে অক্ষয়ের নামে যে শুধু হলভর্তি হয় তা নয়, অক্ষয় কুমারের ছবির ডিজিটাল ও স্যাটেলাইট রাইটস-ও খুব বেশি টাকায় বিক্রি হয়।

তাই অক্ষয় এবং অক্ষয়ের টিম মনে করছে যে তার ১০০ কোটি টাকার বেশি পারিশ্রমিক প্রাপ্য। কারণ অক্ষয় থাকলে প্রজেক্টের গুডউইল বাড়ে। তাই এখন থেকে তাকে নিয়ে ছবি করতে হলে ১২০ কোটি টাকা পারিশ্রমিক লাগবে বলে নির্ধারণ করেছে অক্ষয়ের টিম।’

শোনা গেছে, নতুন ওই ছবিতে অক্ষয় কুমার ছাড়াও মুখ্য ভূমিকায় থাকবেন সারা আলি খান ও ধানুশ। তবে ছবির নাম এখনও ঠিক হয়নি। এ বছরের মাঝামাঝি সময়ে ছবিটি ফ্লোরে যাবে বলে জানা গেছে। এখনও এই ছবির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা হয়নি। আগামী ২-৩ সপ্তাহের মধ্যেই তা ঘটবে, এমনই লেখা হয়েছে ‘বলিউড হাঙ্গামা’-র ওই প্রতিবেদনে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Close