প্রবাস

পরবাসে নির্মম মৃত্যুর নিয়তি

নিউজ ডেস্ক: প্রবাসে বাংলাদেশিদের মৃত্যু অনেকটাই নিয়তিতে পরিণত হয়েছে৷ কখনো বিদেশ পাড়ি দিতে গিয়ে, কখনো চাকরিদাতার কখনোবা মানবপাচারকারীদের নির্যাতনে একের পর এক হত্যার ঘটনা ঘটছে৷ সবশেষ লিবিয়াতে ২৬ জনকে প্রাণ দিতে হয়েছে৷

১৯৭৬ সাল থেকে এখন পর্যন্ত এক কোটি ৩০ লাখ মানুষ কাজ নিয়ে বিদেশে পাড়ি জমিয়েছেন৷ পরিসংখ্যানটি বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের৷ এটি মূলত বৈধভাবে পাড়ি জমানোদের হিসাব৷ এর বাইরেও একটি বড় অংশ বিপদ জেনেও জীবন বাজি রেখে নানা উপায়ে দেশ ছেড়ে যাচ্ছেন, নিজের ভাগ্য পরিবর্তন আর পরিবারের স্বচ্ছলতা ফেরানোর আশায়৷ কখনো কখনো তার সলিল সমাধি হয় স্বপ্নের গন্তব্যে পৌঁছানোর আগেই৷

ফেব্রুয়ারিতে ভূমধ্যসাগর থেকে শরণার্থীদের বহনকারী জাহাজ ওশান ভাইকিংস নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে আলোচনায় আসে৷ সেই জাহাজে কিছুদিন কাটিয়েছিলেন ডয়চে ভেলের সাংবাদিক মিওদ্রাক জরিচ৷ সেখানে তিনি অন্যান্য দেশের শরণার্থীদের সঙ্গে বাংলাদেশিদেরও দেখেছেন৷ তারা হয়ত ভাগ্যবান বেঁচে গেছেন বলে৷ কিন্তু মালয়েশিয়া পাড়ি দিতে গিয়ে বঙ্গোপসাগরে, কিংবা ইউরোপ পৌঁছাতে গিয়ে অনেকেরই স্বপ্ন ডুবে যায় ভূমধ্যসাগরের নোনা জলে৷

তাদেরকে ভুলিয়ে ভালিয়ে এমন বিপদসঙ্কুল পথে ঠেলে দেয়ার পেছনে আছে দেশি-বিদেশি পাচার চক্র৷ দিনের পর দিন এমন ঘটনা ঘটে চললেও তাদেরকে বাগে আনতে পারছে না বা আনার চেষ্টা করছে না সরকারগুলো৷ মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে তাদের সঙ্গে প্রশাসন কিংবা নীতিনির্ধারকদের জড়িত থাকার প্রমাণও মিলেছে৷

বেশ কয়েক বছর আগে দেশটির জঙ্গলে গণকবরের সন্ধান মিলে৷ পাচারকারীদের আস্তানা থেকে বহু মৃত্যুপথযাত্রী বাংলাদেশিদের সেই সময় উদ্ধারও করা হয়৷ সেই খবর বিশ্ব গণমাধ্যমে বেশ আলোড়ন তুলেছিল৷ কিন্তু এরপরও একই পথে মানব পাচার ঠিকই চলছে৷ পাচারকারীদের থামাতে পারেনি মালয়েশিয়া।

সবশেষ লিবিয়ায় ২৬ জন বাংলাদেশির নিহত হওয়ার একটি খবর এসেছে গণমাধ্যমগুলোতে৷ তার পেছনেও রয়েছে পাচারের ঘটনা৷ এক মানবপাচারকারী এর আগে সেখানকার অভিবাসীদের হাতে খুন হয়েছিলেন৷ তার বদলায় পরিবারের সদস্যরা এই হত্যাকাণ্ড ঘটায় বলে খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স৷ বিষয়টি বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও৷

বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশিদের মৃত্যুর ঘটনা এখন অনেকটাই যেন মামুলি হয়ে গেছে৷ গণমাধ্যমে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০১৯ সালে এক বছরে শুধু মালয়েশিয়ায় ৭৮৪ জন বাংলাদেশি মৃত্যুবরণ করেছেন৷ গত দশ বছরে বিদেশ থেকে মোট ২৬ হাজার ২৫৮ জনের লাশ ফিরেছেন৷

২০১৯ সালের নভেম্বর পর্যন্ত সৌদি আরব থেকে ১০০৮, কুয়েত থেকে ২০১, সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ২২৮, বাহরাইন থেকে ৮৭, ওমান থেকে ২৭৬, জর্ডান থেকে ২৬, কাতার থেকে ১১০, লেবানন থেকে ৪০ সহ মোট তিন হাজার ৫৭ জনের লাশ দেশে ফিরেছে৷ ডয়েচে ভেলে

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close