দেশজুড়ে

আব্দুল হাই-এর মৃত্যুতে লেঃ কর্ণেল রমজান আলী সরকার (অবঃ)’র শোক প্রকাশ

মেহেরুল ইসলাম, নাটোর প্রতিনিধিঃ রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের ছোট ভাই ও তার সহকারী একান্ত সচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই-এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন নাটোর-১(লালপুর-বাগাতিপাড়া)আসনের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রাথমিক পর্যায়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশ-রত্ন শেখ হাসিনার মনোনীত আ’লীগ প্রার্থী জননেতা রমজান আলী সরকার (অবঃ)।

শোকবার্তায় রমজান আলী সরকার বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই সবসময় মুক্তিযুদ্ধ ও জাতির পিতার আদর্শ বুকে ধারণ করে রাখতেন। তার মৃত্যুতে দেশ ও জাতি হারালো একজন খাঁটি  দেশপ্রেমিক।

তিনি গভীর শোক প্রকাশ করে বলেন,আব্দুল হাই কে আল্লাহ  সুবহানাহু ওয়া তা’আলা ক্ষমা ও রহম করুক এবং তার কবরকে প্রশস্ত করুক।তার গুণাহখাতাগুলোকে ক্ষমা করে দিয়ে নেকিতে পরিণত করুক।তার জীবনের নেক আমলসমূহ কবুল করে তাকে জান্নাতুল ফিরদাউসে স্থান দান করুক।

শোকবাণীতে তার শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়ে তিনি বলেন, আমি আবদুল হাই এর  মৃত্যুতে ব্যাক্তিগত ভাবে ব্যাথিত ও মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি সেই সাথে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা তাহার পরিবার- পরিজনদের এ শোকে ধৈর্য ধারণ করার তাওফিক দান করুক।

উল্লেখ্য যে,বিশ্বব্যাপি প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শুক্রবার রাত ১টার দিকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) মারা গেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের ছোট ভাই ও তার সহকারী একান্ত সচিব মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর।

বঙ্গভবন সূত্রে জানা যায়, আবদুল হাইয়ের শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দিলে গত ২ জুলাই নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। পরে ৫ জুলাই তাকে ঢাকা সিএমএইচের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে আইসিইউতে রাখা হয়। সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আগামীকাল শনিবার কিশোরগঞ্জের মিঠামইনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আবদুল হাইয়ের জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হবে।

মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই কিশোরগঞ্জের মিঠামইন উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হক সরকারি কলেজের সাবেক সহকারী অধ্যাপক। তিনি পরিবার-পরিজন নিয়ে ঢাকায় থাকতেন। রাষ্ট্রপতির সহকারী একান্ত সচিবের দায়িত্ব পালন করতেন। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও দুই মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। রাষ্ট্রপতির নয় ভাই-বোনের মধ্যে আবদুল হাই ছিলেন অষ্টম।

আবদুল হাই মিঠামইন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার, বিআরডিবির সভাপতি, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ‌’প্রবাহ’ এর সভাপতিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close